মেনু নির্বাচন করুন
সাব রেজিস্ট্রার অফিস

প্রতিটি উপজেলায় একটি করে সাব-রেজিস্ট্রী অফিসরয়েছে। তবে কোন কোন বড় উপজেলায় একাধিক সাব-রেজিস্ট্রী অফিসরয়েছে। অপরদিকে সিটি কর্পোরেশন এলাকায় একাধিক থানা(পুলিশ স্টেশন)নিয়ে একেকটি সাব-রেজিস্ট্রী অফিসের অধিক্ষেত্র গঠিত হয়েছে।

এই অফিস  আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রনালয়ের আওতাধীন ও মহা পরিদর্শক, নিবন্ধন-এর অধীনে পরিচালিত।

দপ্তর প্রধানের পদবী:  সাব-রেজিস্ট্রার।

কার্যক্রম:  সাব-রেজিস্ট্রী অফিসএর উল্লেখযোগ্য কার্যক্রমগুলি হলঃ স্থাবর ও অস্থাবর সম্পত্তি সংক্রান্ত বিভিন্ন প্র্রকারের দলিল রেজিস্ট্রেশন, রেজিস্ট্রীকৃত দলিলের তথ্য সমূহ সংরক্ষন করা, আগ্রহী পক্ষকে রেজিস্ট্রীকৃত দলিলের তথ্য সমূহ ও অনুলিপি(সার্টিফাইড কপি) সরবরাহ করা, সরকারী রাজস্ব আদায় করা, সংশ্লিষ্ট ভূমি অফিসে LT নোটিশপ্রেরনকরা, ব্যাংক/আর্থিকপ্রতিষ্ঠানেরঅনুকুলেদায়মূক্তসনদ(NEC)ইস্যুকরা, দেওয়ানীআদালতেরমামলায়জমিরমালিকানাসংক্রান্তবিরোধেরনিস্পত্তিরপ্রয়োজনেরেকর্ড-পত্রউপস্থাপনকরাইত্যাদি।

  • কী সেবা কীভাবে পাবেন
  • প্রদেয় সেবাসমুহের তালিকা
  • সিটিজেন চার্টার
  • সাধারণ তথ্য
  • সাংগঠনিক কাঠামো
  • কর্মকর্তাবৃন্দ
  • তথ্য প্রদানকারী কর্মকর্তা
  • কর্মচারীবৃন্দ
  • বিজ্ঞপ্তি
  • ডাউনলোড
  • আইন ও সার্কুলার
  • ফটোগ্যালারি
  • প্রকল্পসমূহ
  • যোগাযোগ

16.3 নাগরিক ও সরকারী পর্যায়ে সমস্যা সমূহ এবং সার্ভিস আইডেন্টিফিকেশন

ক্র:নং

         সেবা

সেবা প্রদান/প্রাপ্তির ক্ষেত্রে অসুবিধা সমুহ

  নাগরিক পর্যায়ে

  সরকারী পর্যায়ে

০১

দলিল সংক্রান্ত পরামর্শ

জনসাধারনকে দলিল রেজিস্ট্রেশনের পূর্বে পরামর্শ ও দলিল প্রস্তুত করার জন্য একজন দলিল লেখক বা উকিলের শরনাপন্ন হতে হয়। অনেক ক্ষেত্রেই দক্ষ দলিল লিখকের অভাব রয়েছে্। দলিল প্রস্তুত করার জন্য জনগনকে যথেষ্ট সময় ও অর্থ ব্যয় করতে হয়।

যেকোন ব্যক্তি ইচ্ছা করলে সংশ্লিষ্ট সাব-রেজিস্ট্রারের নিকট থেকে দলিলের রেজিস্টেশন সংক্রান্ত বিষয়ে বিনাখরচে পরামর্শ পেতে পারে। সীমিত জনবলের কারনে প্রতিটি দলিল রেজিস্ট্রে্শনের পূর্বে সংশ্লিষ্ট সকলকে পরামর্শ প্রদান করা অনেক ক্ষেত্রে সম্ভব হয়না।

 

প্রতিটি অফিসে নির্দিষ্ট পরামর্শ ডেস্ক না থাকায় জনগন পরামর্শ প্রাপ্তির বিষয়ে অবগত নয়।

 

০২

দলিল রেজিস্ট্রেশন

দলিল রেজিস্ট্রেশনের জন্য প্রয়োজনীয় তথ্য প্রমান সংগ্রহ করা জনসাধারনের জন্য সময়সাপেক্ষ ও ব্যয়সাধ্য বিষয়্। অধিকাংশ ক্ষেত্রেই জমি হস্তান্তর আইন ও বিধি বিধান এবং জমি রেজিস্ট্রেশন সংক্রান্ত খরচ সম্পর্কে জনগনের স্পষ্ট ধারনা থাকেনা্। দলিলের ফি প্রদান বাবদ ব্যাংকে বিভিন্ন দফায় টাকা জমা প্রদান করে পে-অর্ডার সংগ্রহ করতে যথেষ্ট সময় ও বাড়তি অর্থ ব্যয় করতে হয়।   

জমির মালিকানা সংক্রান্ত স্বয়ংসম্পূর্ন কোন ডাটাবেইজ না থাকায় এবং রেজিস্ট্রী অফিসে জমির মলিকানা সংক্রান্ত আর,ও,আর, না থাকায় উপস্থাপিত তথ্য সমূহ যাচাই করা সম্ভব হয়না।

 

ভিন্ন ভিন্ন দফায় ও  ভিন্ন ভিন্ন পে-অর্ডারে টাকা গ্রহন করা অসুবিধা জনক।

০৩

মূল দলিল সংশ্লিষ্ট পক্ষকে ফেরৎ প্রদান

সাব-রেজিস্ট্রার কর্তৃক দলিলের দাখিল গ্রহনের পর পর্যায়ক্রমে বালাম বইতে মূল দলিলের একটি অবিকল প্রতিলিপি প্রস্তুত করা হয় এবং বিধি অনুযায়ী সুচী প্রস্তুত করার পর পক্ষকে মূল দলিল ফেরত প্রদান করা হয়্। এই প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে অফিস ভেদে ১৫দিন থেকে ২/৩ বছর সময় লেগে যায়।ফলে জনগনকে মূল দলিল ফেরৎ পেতে এই দীর্ঘ সময় অপেক্ষা করতে হয়।

ম্যানুয়াল পদ্ধতিতে দলিল নকলের কাজ ও সূচীর কাজ করতে হয় এবং অনেক ক্ষেত্রেই পর্যাপ্ত জনবল ও বালাম বই-এর নিরবচ্ছিন্ন সরবরাহ না থাকায় সংশ্লিষ্ট সাব-রেজিস্ট্রারের পরিস্থিতি উন্নয়নে তেমন কিছুই করার থাকেনা। এ ক্ষেত্রে সম্পূর্ন রেজিস্ট্রেশন প্রক্রিয়া ডিজিটালাইজেশনের মাধ্যমে সম্পন্ন করা হলে এই দুর্ভোগ লাঘব করা সম্ভব।

০৪

তল্লাশ ও পরিদর্শন

যে কোন ব্যক্তি নির্ধারিত ফি জমা দিয়ে রেজিস্ট্রী অফিস বা সদর রেকর্ডরুম থেকে তল্লাশ কারকের মাধ্যমে বা স্বয়ং সূচী বই তল্লাশ প্রদান পূর্বক কোন সম্পত্তি হস্তান্তরের বিষয়ে সর্বশেষ তথ্য সংগ্রহ করতে পারে বা বালাম বই পরিদর্শন করতে পারে।

তথ্যসমূহ সূচী বই থেকে ম্যানুয়াল পদ্ধতিতে তল্লাশ করা হয় বলে অনেক বেশী সময় ব্যয় হয় এবং অনেক ক্ষেত্রে সঠিক তথ্য পাওয়া যায়না। তথ্য সমুহ ডাটা বেইজ নাথাকায় এই অবস্থার দ্রুত উন্নতি সম্ভব নয়।

০৫

নকল প্রদান

নির্ধারিতফিসজমাদিয়েআগ্রহীপক্ষরেজিস্ট্রীকৃতযেকোনদলিলওসূচীরনকলতুলতেপারে।

বালাম ও সূচীবই থেকে ম্যানুয়াল পদ্ধতিতে নকল প্রস্তুত করে সরবরাহ করা হয় বলে অনেক বেশী সময় ব্যয় হয়।

০৬

দায়মুক্ত(NEC) সনদপ্রদান

যে কোন ব্যক্তি নির্ধারিত ফি জমা দিয়ে রেজিস্ট্রী অফিস বা সদর রেকর্ডরুম থেকে কোনসম্পত্তিরদায়মুক্ত(NEC) সনদসংগ্রহকরতেপারে।

তথ্যসমূহ সূচী বই থেকে ম্যানুয়াল পদ্ধতিতে তল্লাশ করা হয় বলে অনেক বেশী সময় ব্যয় হয় এবং অনেক ক্ষেত্রে সঠিক তথ্য পাওয়া যায়না। তথ্য সমূহ ডাটা বেইজ না থাকায় এই অবস্থার দ্রুত উন্নতি সম্ভব নয়।

 

সাব রেজিস্ট্রার এর কার্যালয় কর্তৃক প্রদেয় সেবার বিবরণ

ক্রমিক নং

সেবার ধরণ

সেবা প্রাপ্তির সময়সীমা

সেবা দানকারী কর্মকর্তার পদবী ও ঠিকানা

উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষ

০১

দলিল রেজিষ্ট্রি করণ বা মোক্তার নামা তসদিক করণ।

১ দিন

সাব রেজিস্ট্রার

দেবিদ্বার, কুমিল্লা।

জেলা রেজিস্ট্রার

কুমিল্লা।

০২

রেজিষ্ট্রিকরণ অমেত্ম মূল দলিল ফেরত গ্রহণ

অফিস ভেদে ১মাস হইতে ১ বৎসর

সাব রেজিস্ট্রার

দেবিদ্বার, কুমিল্লা।

জেলা রেজিস্ট্রার

কুমিল্লা।

০৩

তসদিককৃত মোক্তার নামা ফেরৎ গ্রহণ।

১দিন

সাব রেজিস্ট্রার

দেবিদ্বার, কুমিল্লা।

জেলা রেজিস্ট্রার

কুমিল্লা।

০৪

দলিলের নকল সংগ্রহ

১হইতে ৭দিন

সাব রেজিস্ট্রার

দেবিদ্বার, কুমিল্লা।

জেলা রেজিস্ট্রার

কুমিল্লা।

০৫

সম্পত্তি হসত্মামত্মর সংক্রামত্ম তথ্য সংগ্রহ

১ হইতে ৭দিন

সাব রেজিস্ট্রার

দেবিদ্বার, কুমিল্লা।

জেলা রেজিস্ট্রার

কুমিল্লা।

০৬

দলিল মুসাবিদাকরণ/প্রস্ত্তত করণ/লিখন বিষয়ক সহায়তা গ্রহণ

১দিন

সনদ প্রাপ্ত দলিল লিখক

সাব রেজিস্ট্রার

০৭

দলিল মুসাবিদাকরণ/প্রস্ত্তত করণ/লিখন বিষয়ক রেজিষ্ট্রিকরণের সহায়তা গ্রহণ

১দিন

সনদ প্রাপ্ত দলিল লিখক

সাব রেজিস্ট্রার

০৮

দলিলের নকল বা তথ্য সংগ্রহের বিষয়ে সহায়তা গ্রহণ

১দিন

সনদ প্রাপ্ত দলিল লিখক

সাব রেজিস্ট্রার

০৯

মূল দলিল সংগ্রহে সহায়থা গ্রহণ

১দিন

সনদ প্রাপ্ত দলিল লিখক

সাব রেজিস্ট্রার

১০

যে কোন আবেদন, দরখাসত্ম ইত্যাদি লিখনে সহায়থা গ্রহণ

১দিন

সনদ প্রাপ্ত দলিল লিখক

সাব রেজিস্ট্রার

ছবি নাম মোবাইল
জনাব 0

ছবি নাম মোবাইল
জনাব 0

ছবি নাম মোবাইল

রেজিস্ট্রেশন সংক্রান্ত ফিসের তালিকা

 

ক্রমিক নং

ফিসের দফা

দলিলের বিবরণী

ফিসের পরিমাণ / হার

০১।

এ(১)

হেবার ঘোষণা, ট্রাস্ট, বন্টননামা, ব্যাংক বা আথিক প্রতিষ্ঠানের অনুকুলে বন্ধকী দলিল ও বায়নানামা ব্যতীত অন্যান্য দলিলে স্বত্ব, স্বার্থ ও অধিকারের মূল্য উলে­খ থাকিলে তৎমূলোর উপর

২% তবে ন্যূনতম ১০০ টাকা

০২।

এ (১)

 হেবার ঘোষনা পত্র (মূল্য নির্বিশেষে)

১০০ টাকা

০৩।

এ (১)

ট্রাস্ট দলিলঃ

ক) সম্পত্তির মূল্য ৫০০০ টাকা পর্যন্ত

খ) সম্পত্তির মূল্য ৫০০০ টাকা উর্ধ্বে

 

১০০ টাকা

২৫০০ টাকা (নির্ধারিত)

০৪।

এ (১)

বন্টননামা দলিলঃ

i) সম্পত্তির  মূল্য অনূর্ধ্ব ৩ লক্ষ টাকা হইলে-

i i) সম্পত্তির মূল্য ৩ লক্ষ টাকার উর্ধ্বে কিন্ত ১০ লক্ষ টাকার অনূর্ধ্বে হইলে -

i i i)সম্পত্তির মূল্য ১০ লক্ষ টাকার উর্ধ্বে কিন্ত ৩০ লক্ষ টাকার অনূর্ধ্বে হইলে-

i v) সম্পত্তির মূল্য ৩০ লক্ষ টাকার উর্ধ্বে কিন্ত ৫০ লক্ষ টাকার অনূর্ধ্বে হইলে-

v) সম্পত্তির মূল্য ৫০ লক্ষ টাকার উর্ধ্বে হইলে-

 

৫০০ টাকা

 

৭০০ টাকা

 

১২০০ টাকা

 

১৮০০ টাকা

২০০০ টাকা

০৫।

এ (১)

ব্যাংক বা অর্থলগ্নী প্রতিষ্ঠানের অনুকহলে সম্পদিত বন্ধকী দলিলঃ

i) যে ঋন বাবদ মঞ্জুরীকৃত অর্থের পরিমাণ্য ৫ (পাঁচ) লক্ষ টাকার উর্ধ্বে নহে।

i i) যে ঋন বাবদ মঞ্জুরীকৃত অর্থের পরিমাণ ৫ (পাঁচ) লক্ষ টাকার উর্ধ্বে কিন্ত ৫০ (পঞ্চাশ) লক্ষ টাকার অনূর্ধ্বে হইলে।

i i i) যে ঋন বাবদ মঞ্জুরীকৃত অর্থের পরিমাণ ২০ (বিশ) লক্ষ টাকার উর্ধ্বে।

 

মঞ্জুরীকৃত অর্থের ১% কিন্ত ২০০ টাকার

কম এবং ৫০০ টাকার বেশী নহে।

মঞ্জুরীকৃত অর্থের ০.২৫% কিন্ত ১৫০০ টাকার কম এবং ২০০০ টাকার বেশী নহে।

মঞ্জুরীকৃত অর্থের ০.১০% কিন্ত ৩০০০ টাকার কম এবং ৫০০০ টাকার বেশী নহে।

 

 

০৬।

এ (১)

স্থাবর সম্পত্তি বিক্রয় চুক্তি বা বায়নানামাঃ

i) সম্পত্তির মূল্য অনূর্ধ্বে ৫ (পাঁচ) লক্ষ টাকার হইলে

i) সম্পত্তির মূল্য ৫ (পাঁচ) লক্ষ টাকার উর্ধ্বে কিন্ত ৫০ (পঞ্চাশ) লক্ষ টাকার অনূর্ধ্বে হইলে

i) সম্পত্তির মূল্য ৫০ (পঞ্চাশ) লক্ষ টাকার উর্ধ্বে হইলে

 

 

৫০০ টাকা

 

১০০০ টাকা

২০০০ টাকা

০৭।

এ (১)

 যদি কোন দলিলে অধিকার, স্বত্ব এবং স্বার্থের মূল্য উলে­খ করা না হয়, তবে অনরূপ দলিলের জন্য

 

১০০ টাকা

০৮।

বি

যদি কোন পৃথক দলিল বিক্রয় বা বন্ধক বা ইজারার খাজনা স্বরূপ বা অন্য কোন মূল্য সংক্রান্ত দলিলের কোন অর্থের আদান প্রদান সম্পর্কে প্রাপ্ত স্বীকারের রশিদপত্র রেজিস্ট্রির জন্য দাখিল করা হয়।

দাফা এ অনুসারে অ্যাডভেলোরাম ফিস প্রদান করিতে হইবে। তবে যদি উক্ত অর্থের আদান, প্রদান সংক্রান্ত কোন দলিল ইতিপূর্বেরেজিস্ট্রি হইয়া থাকে তবে রেজিস্ট্রেশন ফিস ১০ টাকা।

০৯।

সি

উইল বা অছিয়তনামাঃ

i) সীল মোহরকৃত কভারে রক্ষিত উইল জমা দেওয়া বা ফেরত পাওয়ার জন্য

i i) সীল মোহরকৃত কভার খোলার জন্য

i i i) কোন উইল বা দত্তক গ্রহনের প্রাধিকার পত্র রেজিস্ট্রি করিতে হইলে অথবা পূর্বে রেজিস্ট্রিকৃত কোন উইল নাকচ বা রদ করার জন্য

 

 

১০০ টাকা

১০০ টাকা

 

২০০ টাকা

১০।

ডি

ব্যক্তিগত চাকুরী সংক্রান্ত দলিল

১০০ টাকা

১১।

পূর্বে উলে­খখিত আর্টিকেল সমূহে লিখিত হয় নাই এরূপ কোন দলিল রেজিস্ট্রির জন্য

১০০ টাকা

১২।

এফ(১)

তল­াস ফিসঃ

i) কোন নিদির্ষ্ট অফিসে প্রতি দলিলে বর্ণিত সম্পত্তি বা ব্যক্তির নামে প্রতিটি এন্ট্রি বাবদ ১ বৎসরের জন্য হইলে

i i) একাধিক বৎসরের জন্য হইলে ১ম বৎসরের জন্য অতিরিক্ত প্রতি বৎসরের জন্য

তবে শর্ত থাকে যে, কোন নিদির্ষ্ট অফিসে কোন একজন ব্যক্তির নাম বা সম্পত্তির সূচীপত্র তল­াসের ফিস ৮০ টাকার অধিক হইবে না।

 

 

১০ টাকা

১০ টাকা

১০ টাকা

 

 

এফ(১)

পরিদর্শন ফিসঃ
১, ৩ বা ৪ নং রেজিস্ট্রার বহির প্রতি নকল অথবা অন্যান্য রেজিস্টার বহির প্রতি এন্ট্রি অথবা কোন একটি নিদির্ষ্ট দলিলের বা কোন ফাইলের বিশেষ একটি পত্র পরিদর্শনের জন্য।

 

 

 

৫ টাকা

১৩।

জি (১)

কোন এন্ট্রি বা দলিল নকলের জন্য প্রদেয় ফিসঃ

i) বাংলায় লিখিত প্রতি ১০০ শব্দ বা উহার অংশবিশেয়ের জন্য

i i) ইংরেজীতে লিখিত প্রতি ১০০ শব্দ বা উহার অংশ বিশেষের জন্য

 

৩ টাকা

৫ টাকা

১৪।

জি (বি)

অগ্রাধিকার বিত্তিতে নকল নিতে চাহিলে

অতিরিক্তত ফিস ২০ টাকা অথবা উক্ত নকল যদি ৪ পৃষ্ঠার (৩০০ শব্দ বিশিষ্ট প্রতি পৃষ্ঠা) অধিক হয়, তাহা হইলে প্রতি পৃষ্ঠার জন্য অতিরিক্ত ফিস ৫ টাকা হারে দিতে হইবে।

     

বি: দ্র: (১) যদি কোন দরখাস্তকারী রেজিস্ট্রিকৃত দলিলের কম্পিউটার কম্পোজ বা টাইপ করা কপি দিয়া সত্যায়িত নকল নিতে চাহেন তাহা হইলে নকলটি তুলনা করিবার জন্য এ দফায় প্রদেয় ফিসের অর্ধেক ফিস প্রদান করিতে হইবে।

(২) ফিস প্রদান হইতে রেহাই প্রাপ্ত নকল ছাড়া অন্যান্য সকল নকলের দরখাস্তে ১৮৭০ সালের কোর্ট ফি আইনের অধীনে ২০/- টাকা মূল্যের কোর্ট ফি দিতে হইবে।

 

১৫।

 

 

জে(১)

 

জে (২)

 

 

 

কে (১)

 

কে (২)

কমিশন ফিস

 

প্রতি দরখাস্তে (রেজিঃ আইনের ৩১ ধারা মতে)

 

(1)   ভ্রমণ ভাতা- কর্মকর্তা

 

(2)  ভ্রমণ ভাত- পিয়ন

 

রেজিঃ আইনের ৩৮ (এ) ধারামতে

রেজিঃ আইনের ৩৮ (বি) ধারামতে

ভ্রমণ ভাতা (১) কর্মকর্তা (২) পিয়ন

 

৩০০ টাকা

 

১.৫০ টাকা প্রতি মাইল

১.০০ টাকা প্রতি কিলোমিটার

০.৬০ টাকা প্রতি মাইল

০.৪০ টাকা প্রতি কিলোমিটার

 

২০০ টাকা

১০০ টাকা

জে (২) এর অনুরূপ

 

 

তবে নিবন্ধন পরিদপ্তরের ১৩/০৮/১৯৮৫ তারিখে জারিকৃত পরিপত্র অনুযায়ী পৌর বা শহর এলাকার জন্য দূরত্ব ১ মাইলের কম বা বেশি যাহাই হউক না কেন, রেজিস্ট্রি কর্মকর্তার যানবাহন ভাড়ার জন্য (১) সকল মেট্রোপলিটন শহর এলাকায় ১৫/- টাকা. (২) নারয়ণগঞ্জ ও অন্যান্যপৌর এলাকায় ১০/- টাকা হিসাবে ভ্রমণ ভাতা প্রদেয়।

১৬।

 

এল (১)

এল (২)

আমমোক্তারনামা প্রামাণিকরণ বা তস্দিককরণের জন্য প্রদেয় ফিসঃ

বিশেষ বা খাস মোক্তারনামার জন্য

সাধারন বা আমমোক্তারানামার জন্য

 

১০০ টাকা

২০০ টাকা

১৭।

এম (এ)

এম (বি)

স্মারক পত্র প্রেরণের জন্য এ,বি,ই ফিসের সমান। তবে সবের্বাচ্চ

 

দলিলের নকল প্রারণের জন্য এ,বি,ই ফিসের সমান। তবে সবের্বাচ্চ

১০ টাকা

৬০ টাকা

১৮।

এন

দলিলে লিখিত  শব্দের সংখ্যা দুই পৃষ্ঠা বা ৬০০ শব্দের অতিরিক্ত হইলে অতিরিক্ত প্রতি ৩০০ শব্দ বা তার অংশ বিশেষ এর জন্য

 

২৫ টাকা

 ১৯।

দলিল রেজিস্ট্রি সমাপ্ত হইবার পর ১ (এক) মাসের অধিক দাবীবিহঅন থাকিলে দলিল ফেরত গ্রহণের জন্য প্রথম মাসের অতিরিক্ত প্রতি মাস বা তার অংশ বিশেষর জন্য

 

৩ টাকা। তবে সবের্বাচ্চ ৫০ টাকা

সাব রেজিস্ট্রারের কার্যালয়, সরাইল, ব্রাহ্মণবাড়িয়া।



Share with :

Facebook Twitter